কুড়িগ্রামে খসড়া সম্প্রচার নীতিমালা-২০১১ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত


গত শনিবার ২২ অক্টোবর ২০১১ খ্রি. তারিখে কুড়িগ্রাম থেকে প্রকাশিত দুটি লিটলম্যাগাজিন শ্বেতপত্র ও বিন্দু’র যৌথ উদ্যোগে কুড়িগ্রাম প্রেসকাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে “খসড়া সম্প্রচার নীতিমালা-২০১১ ও গণতান্ত্রিক বাঙলাদেশ নির্মাণের প্রশ্ন” শীর্ষক আলোচনা সভা।
উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন, বাসদ- কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি এ্যাড. জাহেদুল হক মিলু, সিপিবি- কুড়িগ্রাম জেলা কমিটির সভাপতি মাহবুবার রহমান মমিন, তেল-গ্যাস-বিদ্যুৎ ও বন্দর রা জাতীয় কমিটি- কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সদস্য সচিব নুর মোহাম্মদ আনসার, সিপিবি- কুড়িগ্রাম জেলা কমিটির সদস্য আখতারুল ইসলাম রাজু, বিশিষ্ট কলামিস্ট নাহিদ নলেজ, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন- কুড়িগ্রাম জেলা সংসদের দপ্তর সম্পাদক ও আবৃত্তিশিল্পি নিরঞ্জন চন্দ্র রায়, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট- কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সংগঠক কবি গৌতম কুমার, কুড়িগ্রাম ডিবেট ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক শান্তনু সরকার সহ অনেকে। সভায় সভাপতিত্ব করেন শ্বেতপত্র সম্পাদক কবি মোকলেছুর রহমান।
সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমান মতাসীন সরকার ‘খসড়া সম্প্রচার নীতিমালা-২০১১’ প্রণয়ন করার মধ্য দিয়ে এটা পরিষ্কার হয়েছে যে তারা মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারকে বন্ধ করার প্রচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এই নীতিমালা বাস্তবায়িত হলে এদেশের মিডিয়াগুলো স্বাধীনভাবে সত্য ঘটনা প্রকাশ করতে পারবে না। পত্রিকাগুলো কেবলমাত্র নাচ-গান প্রকাশ করবে আর ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া মারডকের চ্যানেলের জায়গায় চলে যাবে। তারা আরো বলেন, সরকার একদিকে তথ্য অধিকার বাস্তবায়নের কথা বলছে অন্যদিকে তথ্য প্রকাশে বাঁধা দেবার ব্যবস্থা পাকাপোক্ত করতে চাইছে; যা আসলে বুর্জোয়া সমাজ ব্যবস্থার মধ্যকার দ্বন্দ্বকেই প্রকাশ করে।
এই অগণতান্ত্রিক নীতিমালা অবিলম্বে প্রত্যাহার না করা হলে তারা এ বিষয়ে বৃহত্তর কর্মসূচির দিকে এগিয়ে যাবেন বলেও ঘোষণা করেন। উল্লেখ্য সভাটি সঞ্চালনা করেন বিন্দু সম্পাদক শব্দশিল্পি সাম্য রাইয়ান।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন